বিশ্বাসঘাতক মেঘনাদের অন্তর্জলীযাত্রা – ৩

কথায় বলে এক জায়গায় দুবার বাজ পড়ে না। ভুল বলে। উপর‌ওয়ালার দরবারে দাঁড়িয়ে অন্তত এমন একটি দাবির ধুয়ো নিশ্চয়ই তুলতে পারেন পরলোকগতা সেই কিশোরী। একবার তো নয়, তাঁর জীবনে যে দু দুবার বাজ পড়েছিল! প্রথম বজ্রপাতে মৃত্যু হয় তাঁর কিশোর প্রেমিকের। দ্বিতীয় বজ্রপাত ধেয়ে আসে তাঁর‌ই জীবনে। আর তাঁর স্বামী? মানে আমার সেই ‘বিশ্বাসঘাতক’ নিজেও বরণ করে নেন তৃতীয় বজ্রপাত। তিনটি ক্ষেত্রেই বজ্রপাতের মেডিক্যাল টার্মিনোলজি ছিল টিউবারকিউলোসিস। যার কোন চিকিৎসাই ছিল না তৎকালীন বিশ্বে।

 

স্ত্রী-র অকালমৃত্যুর পর রীতিমতো ভেঙে পড়েছিলেন মানসিকভাবে। ঘনিষ্ঠতম আত্মীয়, বন্ধু-বান্ধবেরা যে দ্বিতীয় বার বিবাহের উপদেশ বা পরামর্শ দেননি, এমনটা নয়। কিন্তু আমার ‘বিশ্বাসঘাতক’ প্রয়াত পত্নীর প্রতি ছিলেন প্রকৃত অর্থেই চিরবিশ্বস্ত। শিশুপুত্র আর শিশুকন্যাকে বড় করেছেন, সুশিক্ষিত করার চেষ্টায় ত্রুটি রাখেননি। পাশাপাশি হোটেলের রাঁধুনি হিসেবে আমদানি করেছিলেন এক নতুন জাতের চিকেন কারি। আজ‌ও বিশ্বের একটি নামকরা দেশের ঐতিহ্যমণ্ডিত একটি হোটেলে আপনি অর্ডার দিলে ওয়েটার আপনাকে খাঁটি ভারতীয় তথা বাঙালি ট্র্যাডিশনাল চিকেন কারি সার্ভ করবেন!

 

কে এই বিশ্বাসঘাতক? যিনি হতে পারতেন অন্যতম সেরা বেহালা বাদক, কিংবা প্রথম সারির একজন অভিনেতা, বা বহুভাষাবিদ, আই কিউ এর মানদণ্ডে যাঁর কাছে হার মানতে হয়েছিল ব্রিটিশ সাম্রাজ্যের তা-বড় তা-বড় ঝানু গোয়েন্দা অফিসারদের… যিনি ছিলেন দুর্ধর্ষ রাঁধুনি; মায় ছদ্মবেশ ধারণের ক্ষেত্রে একমেবাদ্বিতীয়ম…

 

 

… সেই মানুষটির জীবনকাহিনী তুলে ধরার চেষ্টা করছি আপনাদের আন্তর্জাতিক আদালতে! একটা স্বয়ংক্রিয় প্রচেষ্টা বলতে পারেন!

 

আপনাদের পাশে পাবো তো পাঠক বন্ধু? বিশ্বাসঘাতক যে আপনাদের মানবিকতার দরবারে শেষ বিচারের প্রত্যাশায় থাকবেন…

You may also like...

2 Responses

  1. Sandy says:

    অপেক্ষায় রইলাম বিশ্বাসঘাতকের ঘাত দেখার জন্য।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *